গ্রামে গ্রামে করোনা সংক্রমণ রোধে ব্যারিকেড, দেয়া হচ্ছে বাঁশের বেড়া

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে কুমিল্লার বিভিন্ন গ্রামে বাঁশের বেড়া দিয়ে মূল সড়কে ব্যারিকেড সৃষ্ট করা হয়েছে। এই ব্যারিকেডের উদ্দেশ্য গ্রামে নতুন কারও আগমন যেন না ঘটে। পাশাপাশি যানবাহনের চলাচলও বন্ধ। এছাড়াও অপ্রয়োজনে সাধারণ মানুষ যেন ঘুরাঘুরি না করতে পারে সে দিকেও নজর দেয়া হচ্ছে।

সরেজমিনে কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার আমড়াতলী ইউনিয়নের মহেশপুর গ্রামে গিয়ে দেখা যায় গ্রামে প্রবেশের মূল সড়কে বাঁশ ও সিমেন্টের তৈরি পিলার দিয়ে গ্রামের রাস্তায় যাতায়াতের পথে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করা হয়েছে। পরে ওই বাঁশের বেড়ায় কাগজের সাইনবোর্ড টানিয়ে দেয়া হয়। সাইনবোর্ডে লেখা ‘লকডাউন’।

গ্রামের স্থানীয় বাসিন্দা আরিফ, পলাশ ও জুয়েল জানান, করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে এ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। এতে গ্রামের মানুষের অবাধ চলাচল বন্ধ হবে। এছাড়াও যানচলাচল বন্ধ হবে। আমরা সচেতন হলেই করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধ সম্ভব।
এদিকে লকডাউনের বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় আমড়াতলী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কাজী মোজাম্মেল হক জানান, আমরা করোনা থেকে মুক্ত থাকতে প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছি। অনেকেই সচেতন হচ্ছে।

এদিকে জেলার নাঙ্গলকোটের বান্নাগর, ছুপুয়া দাসনাইপাড়া ও কুকুরীখিল স্থানীয়রা গ্রামে প্রবেশের মূল সড়কে বাঁশের বেড়া দিয়েছে। তারা জানায়, গ্রামবাসী সবাই মিলে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এলাকার স্থানীয়রাই সমন্বিতভাবেই গ্রামে প্রবেশের মূল সড়কে ব্যারিকেড দিয়েছে। যাতে করে গ্রামে অবাধ চলাচল বন্ধ হয়। আর তাদের বিশ্বাস, এভাবেই করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ সম্ভব।

সচেতন নাগরিক কমিটি কুমিল্লার সভাপতি বদরুল হুদা জেনু বলেন, সবার ব্যক্তিগতভাবে সচেতনতার বিকল্প নেই। সামাজিক দূরত্ব এখন সময়ের দাবি।