ঘুষের ৫ লাখ টাকাসহ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অডিটর হাতেনাতে আটক

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শ্রমিক-কর্মচারীদের বকেয়া বেতন-ভাতার জটিলতা নিরসনের জন্য পাঁচ লাখ টাকা ঘুষ নেয়ার দায়ে জেলা হিসাব রক্ষণ অফিসের অডিটর কুতুব উদ্দিনকে আটক করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকালে জেলা শহরের কাউতলি এলাকার নিজ কার্যালয় থেকে জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা (এনএসআই) সদস্যদের সহযোগিতায় সদর মডেল থানা পুলিশ তাকে আটক করে।

সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সড়ক ও জনপথ (সওজ) বিভাগের বিভিন্ন শাখায় ‘ওয়ার্ক চার্জে’ কাজ করা তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির অর্ধশতাধিক শ্রমিক-কর্মচারীর চাকরি আদালতের নির্দেশে নিয়মিত করা হয়েছে।

তবে ওইসব শ্রমিক-কর্মচারীদের দীর্ঘদিনের বকেয়া বেতন পরিশোধ নিয়ে জটিলতা দেখা দেয়। সেই জটিলতা নিরসনের জন্য অডিটর কুতুব উদ্দিন বৃহস্পতিবার বিকালে সওজ বিভাগের তিনজন শ্রমিক-কর্মচারীর কাছ থেকে পাঁচ লাখ টাকা ঘুষ নেন। পরবর্তীতে এনএসআই সদস্যরা অডিটর কুতুব উদ্দিনের টেবিলের ড্রয়ার থেকে ঘুষের টাকা জব্দ করে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেন।

আরও জানা গেছে, সড়ক ও জনপথ বিভাগের ‘ওয়ার্ক চার্জে’ কর্মরত ৬৩ জন কর্মীর ১ কোটি ৭ লাখ টাকার বিল আসে। এর আগে ৬০ লাখ টাকার উপরে টাকা নেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার পূর্বের বেতন ভাতার মোট ১ কোটি ৭ লাখ পেতে অডিট অফিসের সঙ্গে চুক্তি করে। প্রথম দফায় ৬৪ লাখ টাকা নিয়ে যায়। বৃহস্পতিবার বাকি ৪৩ লাখ টাকার বিল করা হয়েছিল।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সড়ক ও জনপথ বিভাগের ৪র্থ শ্রেণীর কর্মী আব্দুল হাই, নজরুল ইসলাম ও হুমায়ুন ঘুষের ৫ লাখ টাকা নিয়ে ট্রেজারি অফিসে নিয়ে যায়। এই টাকা সওজের কর্মচারীদের পক্ষ থেকে ঘুষ দেয়া হয়।

এই ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ২নং ফাঁড়ির পরিদর্শক সোহাগ রানা বলেন, এই ঘটনায় সড়ক ও জনপথ বিভাগের পক্ষ থেকে মামলা দায়ের করা হবে। আমরা মামলাটি দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কাছে পাঠাব। দুদক মামলাটি তদন্ত করবে।