ছোট বোনের এক ঘণ্টা পর বড় বোনও করলেন আত্মহত্যা

কুষ্টিয়ায় দৌলতপুরে গলায় ফাঁস দিয়ে দুই বোন আত্মহত্যা করেছেন। শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) বিকেল ৫টার দিকে উপজেলার আড়িয়া ইউনিয়নের আড়িয়া কামারপাড়া এলাকা থেকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।নিহতরা হলেন- আড়িয়া কামারপাড়া এলাকার মুয়াজ্জেম সর্দারের মেয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থী মুক্তা (১৫) ও তার চাচাতো বোন মুন্তাজ আলী সর্দারের মেয়ে রুমা (২৫)।

স্থানীয়রা জানান, খালাতো বোনের (১৬) ধর্ষণ মামলার সহযোগী আসামি ছিল মুক্তা। এ নিয়ে শুক্রবার দুপুরে মুক্তা ও তার খালাতো বোনের মধ্যে ঝগড়া হয়। এরই জের ধরে রাগে-ক্ষোভে দুপুর ১২টার দিকে মুক্তা নিজ ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

এদিকে মিরপুরে বিয়ে হওয়া রুমা শুক্রবার সকালে আড়িয়া কামারপাড়ায় বাবার বাড়ি আসেন। নিজ বাড়িতে মুক্তাকে আশ্রয় দেয়ার কারণে তিনিও ঝগড়া-বিবাদে জড়িয়ে পড়েন। মুক্তা গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে শুনার পরপরই রুমাও দুপুর ১টার দিকে তার ভাইয়ের ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। খবর পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাদের মরদেহ উদ্ধার করে।

দৌলতপুর থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) শাহাদত হোসেন বলেন, মামলা সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে নিজেদের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদের জের ধরে আপন চাচাতো দুই বোন গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। ময়নাতদন্তের জন্য তাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। তাদের আত্মহত্যার পেছনে অন্য কোনো ঘটনা আছে কি-না তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।